সেরা ছয় ব্যাটসম্যানের একজন আমি: খাজা

স্টিভ স্মিথ এবং ডেভিড ওয়ার্নার যখন নিষেধাজ্ঞায় ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং অর্ডারের হাল ধরেছিলেন উসমান খাজা। টেস্টে এবং ওয়ানডে ফরম্যাটে দারুণ সময় কাটিয়েছেন তিনি। এমনকি বিশ্বকাপের আগেও দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন খাজা। কিন্তু ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে এবং বিশ্বকাপের পরে অ্যাসেজ সিরিজে নিজেকে হারিয়ে খোঁজেন উসমান খাজা। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের ঘোষিত কেন্দ্রিয় চুক্তি থেকে তিনি তাই বাদ পড়েছেন।তার জায়গায় চুক্তিতে ঢুকেছেন অসাধারণ ফর্মে থাকা তরুণ মার্নাস লাবুশানে। ২৫ বছর বয়সী এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান টেস্টের পাশাপাশি ওয়ানডে ফরম্যাটেও ভালো ছন্দে আছেন। তবে খাজা মনে করেন, চুক্তি থেকে তিনি বাদ পড়লেও এখনও দেশের সেরা ছয় ব্যাটসম্যানের একজন তিনি। অজিদের মধ্যে স্টিভ স্মিথের পরে তিনিই ভালো স্পিন সামলাতে পারেন।খাজা ফক্স স্পোর্টসকে বলেন, ‘রাগ না করেই বলছি, আমি এখনও মনে করি, অস্ট্রেলিয়ার সেরা ছয় ব্যাটসম্যানের একজন আমি। স্পিনের বিপক্ষে আমি দেশের সেরাদের একজন। সম্ভাবত স্মিথের পরেই আমি। যদিও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো দলের হয়ে রান করা।’৩৩ বছর বয়সী এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আমি ধাক্কার মতো খেলেছিলাম। আমি এখনও প্রকৃত কারণ জানি না, হতে পারে বোর্ড কিছুটা আর্থিক সংকটে আছে। তবে আমি আবার ফিরে আসবো। এমন নয় যে, আমার বয়স ৩৭ বা ৩৮এবং আমি ক্যারিয়ারের শেষ ধাপে আছি। একবার পারফরম্যান্স করা শুরু করলে আবার তা চলতে থাকবে।’

স্টিভ স্মিথ এবং ডেভিড ওয়ার্নার যখন নিষেধাজ্ঞায় ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং অর্ডারের হাল ধরেছিলেন উসমান খাজা। টেস্টে এবং ওয়ানডে ফরম্যাটে দারুণ সময় কাটিয়েছেন তিনি। এমনকি বিশ্বকাপের আগেও দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন খাজা। কিন্তু ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে এবং বিশ্বকাপের পরে অ্যাসেজ সিরিজে নিজেকে হারিয়ে খোঁজেন উসমান খাজা। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের ঘোষিত কেন্দ্রিয় চুক্তি থেকে তিনি তাই বাদ পড়েছেন।তার জায়গায় চুক্তিতে ঢুকেছেন অসাধারণ ফর্মে থাকা তরুণ মার্নাস লাবুশানে। ২৫ বছর বয়সী এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান টেস্টের পাশাপাশি ওয়ানডে ফরম্যাটেও ভালো ছন্দে আছেন। তবে খাজা মনে করেন, চুক্তি থেকে তিনি বাদ পড়লেও এখনও দেশের সেরা ছয় ব্যাটসম্যানের একজন তিনি। অজিদের মধ্যে স্টিভ স্মিথের পরে তিনিই ভালো স্পিন সামলাতে পারেন।খাজা ফক্স স্পোর্টসকে বলেন, ‘রাগ না করেই বলছি, আমি এখনও মনে করি, অস্ট্রেলিয়ার সেরা ছয় ব্যাটসম্যানের একজন আমি। স্পিনের বিপক্ষে আমি দেশের সেরাদের একজন। সম্ভাবত স্মিথের পরেই আমি। যদিও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো দলের হয়ে রান করা।’৩৩ বছর বয়সী এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আমি ধাক্কার মতো খেলেছিলাম। আমি এখনও প্রকৃত কারণ জানি না, হতে পারে বোর্ড কিছুটা আর্থিক সংকটে আছে। তবে আমি আবার ফিরে আসবো। এমন নয় যে, আমার বয়স ৩৭ বা ৩৮এবং আমি ক্যারিয়ারের শেষ ধাপে আছি। একবার পারফরম্যান্স করা শুরু করলে আবার তা চলতে থাকবে।’

স্টিভ স্মিথ এবং ডেভিড ওয়ার্নার যখন নিষেধাজ্ঞায় ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং অর্ডারের হাল ধরেছিলেন উসমান খাজা। টেস্টে এবং ওয়ানডে ফরম্যাটে দারুণ সময় কাটিয়েছেন তিনি। এমনকি বিশ্বকাপের আগেও দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন খাজা। কিন্তু ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে এবং বিশ্বকাপের পরে অ্যাসেজ সিরিজে নিজেকে হারিয়ে খোঁজেন উসমান খাজা। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের ঘোষিত কেন্দ্রিয় চুক্তি থেকে তিনি তাই বাদ পড়েছেন।তার জায়গায় চুক্তিতে ঢুকেছেন অসাধারণ ফর্মে থাকা তরুণ মার্নাস লাবুশানে। ২৫ বছর বয়সী এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান টেস্টের পাশাপাশি ওয়ানডে ফরম্যাটেও ভালো ছন্দে আছেন। তবে খাজা মনে করেন, চুক্তি থেকে তিনি বাদ পড়লেও এখনও দেশের সেরা ছয় ব্যাটসম্যানের একজন তিনি। অজিদের মধ্যে স্টিভ স্মিথের পরে তিনিই ভালো স্পিন সামলাতে পারেন।খাজা ফক্স স্পোর্টসকে বলেন, ‘রাগ না করেই বলছি, আমি এখনও মনে করি, অস্ট্রেলিয়ার সেরা ছয় ব্যাটসম্যানের একজন আমি। স্পিনের বিপক্ষে আমি দেশের সেরাদের একজন। সম্ভাবত স্মিথের পরেই আমি। যদিও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো দলের হয়ে রান করা।’৩৩ বছর বয়সী এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আমি ধাক্কার মতো খেলেছিলাম। আমি এখনও প্রকৃত কারণ জানি না, হতে পারে বোর্ড কিছুটা আর্থিক সংকটে আছে। তবে আমি আবার ফিরে আসবো। এমন নয় যে, আমার বয়স ৩৭ বা ৩৮এবং আমি ক্যারিয়ারের শেষ ধাপে আছি। একবার পারফরম্যান্স করা শুরু করলে আবার তা চলতে থাকবে।’

স্টিভ স্মিথ এবং ডেভিড ওয়ার্নার যখন নিষেধাজ্ঞায় ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং অর্ডারের হাল ধরেছিলেন উসমান খাজা। টেস্টে এবং ওয়ানডে ফরম্যাটে দারুণ সময় কাটিয়েছেন তিনি। এমনকি বিশ্বকাপের আগেও দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন খাজা। কিন্তু ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে এবং বিশ্বকাপের পরে অ্যাসেজ সিরিজে নিজেকে হারিয়ে খোঁজেন উসমান খাজা। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের ঘোষিত কেন্দ্রিয় চুক্তি থেকে তিনি তাই বাদ পড়েছেন।তার জায়গায় চুক্তিতে ঢুকেছেন অসাধারণ ফর্মে থাকা তরুণ মার্নাস লাবুশানে। ২৫ বছর বয়সী এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান টেস্টের পাশাপাশি ওয়ানডে ফরম্যাটেও ভালো ছন্দে আছেন। তবে খাজা মনে করেন, চুক্তি থেকে তিনি বাদ পড়লেও এখনও দেশের সেরা ছয় ব্যাটসম্যানের একজন তিনি। অজিদের মধ্যে স্টিভ স্মিথের পরে তিনিই ভালো স্পিন সামলাতে পারেন।খাজা ফক্স স্পোর্টসকে বলেন, ‘রাগ না করেই বলছি, আমি এখনও মনে করি, অস্ট্রেলিয়ার সেরা ছয় ব্যাটসম্যানের একজন আমি। স্পিনের বিপক্ষে আমি দেশের সেরাদের একজন। সম্ভাবত স্মিথের পরেই আমি। যদিও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো দলের হয়ে রান করা।’৩৩ বছর বয়সী এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আমি ধাক্কার মতো খেলেছিলাম। আমি এখনও প্রকৃত কারণ জানি না, হতে পারে বোর্ড কিছুটা আর্থিক সংকটে আছে। তবে আমি আবার ফিরে আসবো। এমন নয় যে, আমার বয়স ৩৭ বা ৩৮এবং আমি ক্যারিয়ারের শেষ ধাপে আছি। একবার পারফরম্যান্স করা শুরু করলে আবার তা চলতে থাকবে।’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*