লাখ লাখ দর্শক দেখল কোরিয়ান লিগের ম্যাচ

সেই মার্চের পর থেকে খেলাধুলা বন্ধ। ঘরবন্দি দর্শকদের তো একটু খারাপ লাগারই কথা। এর মধ্যে ‘কে লিগে’র ম্যাচ দেখে যেন হুমড়ি খেয়েই পড়ল তারা। বিবিসি অনলাইনে সম্প্রচার করেছিল দক্ষিণ কোরিয়ার একটি লিগ ম্যাচ। তাতেই দেখা গেল লাখো দর্শক। যারা কিনা শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত টিউন করেছিল। যেটি রীতিমতো আলোচনার জন্ম দিয়েছে।অন্য সময় অনলাইন দূরে থাকা সরাসরি টিভিতেও নাকি এত মানুষ দেখে না এই লিগ। অবশ্য বিগ ম্যাচ হলে আবার ভিন্ন কথা। সেখানে এত এত দর্শক। আরেকটা বিষয়, ৮৩ মিনিট অপেক্ষার পর এক গোল দেখল তারা। দক্ষিণ কোরিয়ার দুই দল জেবাক মোটরস আর সোয়ান ব্লুউইংসের মধ্যকার ম্যাচটা এমন ম্যাড়মেড়ে থাকার পরও দর্শকের স্রোতে বাঁধ দেওয়া যায়নি।

বিবিসি তাদের ওয়েবসাইট আর টুইটার পেজে সরাসরি দেখিয়েছে এই ম্যাচ। যেখানে সবমিলে আনুমানিক দুই মিলিয়ন দর্শক দেখেছে ম্যাচটা।এদিকে ক”রো”না”র কারণে বেশ কঠিন নিয়ম মেনেই মাঠে নামে কোরিয়ার ক্লাব দুটি।যদিও এখনও দেশটিতে সেভাবে ক”রো”না ছড়ায়নি। তারপরও তারা সতর্ক। গতকাল পর্যন্ত আ”ক্রা”ন্ত হয়েছেন ১০ হাজারের বেশি মানুষ। মা”রা গেছেন আড়াইশ’ মানুষ। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯ হাজারের বেশি। তবুও খেলোয়াড়দের টে”স্টে”র কমতি রাখেনি তারা। সব খেলোয়াড়ই টেস্ট করিয়েছেন। তাদের সবার রেজাল্টও নেগেটিভ আসে।এরপরই মূলত ক্লোজ ডোরে খেলতে নামে দক্ষিণ কোরিয়া। তবে গ্যালারিতে দর্শক না থাকলেও খেলোয়াড়দের উজ্জীবিত রাখতে কৃত্রিম উল্লাসের ব্যবস্থা করেছে ‘কে লিগ’ কর্তৃপক্ষ।

সেই মার্চের পর থেকে খেলাধুলা বন্ধ। ঘরবন্দি দর্শকদের তো একটু খারাপ লাগারই কথা। এর মধ্যে ‘কে লিগে’র ম্যাচ দেখে যেন হুমড়ি খেয়েই পড়ল তারা। বিবিসি অনলাইনে সম্প্রচার করেছিল দক্ষিণ কোরিয়ার একটি লিগ ম্যাচ। তাতেই দেখা গেল লাখো দর্শক। যারা কিনা শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত টিউন করেছিল। যেটি রীতিমতো আলোচনার জন্ম দিয়েছে।অন্য সময় অনলাইন দূরে থাকা সরাসরি টিভিতেও নাকি এত মানুষ দেখে না এই লিগ। অবশ্য বিগ ম্যাচ হলে আবার ভিন্ন কথা। সেখানে এত এত দর্শক। আরেকটা বিষয়, ৮৩ মিনিট অপেক্ষার পর এক গোল দেখল তারা। দক্ষিণ কোরিয়ার দুই দল জেবাক মোটরস আর সোয়ান ব্লুউইংসের মধ্যকার ম্যাচটা এমন ম্যাড়মেড়ে থাকার পরও দর্শকের স্রোতে বাঁধ দেওয়া যায়নি।

বিবিসি তাদের ওয়েবসাইট আর টুইটার পেজে সরাসরি দেখিয়েছে এই ম্যাচ। যেখানে সবমিলে আনুমানিক দুই মিলিয়ন দর্শক দেখেছে ম্যাচটা।এদিকে ক”রো”না”র কারণে বেশ কঠিন নিয়ম মেনেই মাঠে নামে কোরিয়ার ক্লাব দুটি।যদিও এখনও দেশটিতে সেভাবে ক”রো”না ছড়ায়নি। তারপরও তারা সতর্ক। গতকাল পর্যন্ত আ”ক্রা”ন্ত হয়েছেন ১০ হাজারের বেশি মানুষ। মা”রা গেছেন আড়াইশ’ মানুষ। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯ হাজারের বেশি। তবুও খেলোয়াড়দের টে”স্টে”র কমতি রাখেনি তারা। সব খেলোয়াড়ই টেস্ট করিয়েছেন। তাদের সবার রেজাল্টও নেগেটিভ আসে।এরপরই মূলত ক্লোজ ডোরে খেলতে নামে দক্ষিণ কোরিয়া। তবে গ্যালারিতে দর্শক না থাকলেও খেলোয়াড়দের উজ্জীবিত রাখতে কৃত্রিম উল্লাসের ব্যবস্থা করেছে ‘কে লিগ’ কর্তৃপক্ষ।

সেই মার্চের পর থেকে খেলাধুলা বন্ধ। ঘরবন্দি দর্শকদের তো একটু খারাপ লাগারই কথা। এর মধ্যে ‘কে লিগে’র ম্যাচ দেখে যেন হুমড়ি খেয়েই পড়ল তারা। বিবিসি অনলাইনে সম্প্রচার করেছিল দক্ষিণ কোরিয়ার একটি লিগ ম্যাচ। তাতেই দেখা গেল লাখো দর্শক। যারা কিনা শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত টিউন করেছিল। যেটি রীতিমতো আলোচনার জন্ম দিয়েছে।অন্য সময় অনলাইন দূরে থাকা সরাসরি টিভিতেও নাকি এত মানুষ দেখে না এই লিগ। অবশ্য বিগ ম্যাচ হলে আবার ভিন্ন কথা। সেখানে এত এত দর্শক। আরেকটা বিষয়, ৮৩ মিনিট অপেক্ষার পর এক গোল দেখল তারা। দক্ষিণ কোরিয়ার দুই দল জেবাক মোটরস আর সোয়ান ব্লুউইংসের মধ্যকার ম্যাচটা এমন ম্যাড়মেড়ে থাকার পরও দর্শকের স্রোতে বাঁধ দেওয়া যায়নি।

বিবিসি তাদের ওয়েবসাইট আর টুইটার পেজে সরাসরি দেখিয়েছে এই ম্যাচ। যেখানে সবমিলে আনুমানিক দুই মিলিয়ন দর্শক দেখেছে ম্যাচটা।এদিকে ক”রো”না”র কারণে বেশ কঠিন নিয়ম মেনেই মাঠে নামে কোরিয়ার ক্লাব দুটি।যদিও এখনও দেশটিতে সেভাবে ক”রো”না ছড়ায়নি। তারপরও তারা সতর্ক। গতকাল পর্যন্ত আ”ক্রা”ন্ত হয়েছেন ১০ হাজারের বেশি মানুষ। মা”রা গেছেন আড়াইশ’ মানুষ। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯ হাজারের বেশি। তবুও খেলোয়াড়দের টে”স্টে”র কমতি রাখেনি তারা। সব খেলোয়াড়ই টেস্ট করিয়েছেন। তাদের সবার রেজাল্টও নেগেটিভ আসে।এরপরই মূলত ক্লোজ ডোরে খেলতে নামে দক্ষিণ কোরিয়া। তবে গ্যালারিতে দর্শক না থাকলেও খেলোয়াড়দের উজ্জীবিত রাখতে কৃত্রিম উল্লাসের ব্যবস্থা করেছে ‘কে লিগ’ কর্তৃপক্ষ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*