ডিম খাওয়ার ৩ মারাত্মক ক্ষতি

ডিম খেতে পছন্দ করেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দায়। শিশু থেকে শুরু করে বয়োজ্যেষ্ঠ পর্যন্ত সবাই ডিম খেতে খুব পছন্দ করেন। আবার অনেকে রান্নার ঝামেলা এড়াতে রুটির সঙ্গে ডিম পোছ করে খেয়ে থাকেন।

শরীর দুর্বল হলে ডাক্তার সকালবেলার নাশতায় ডিম খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। ডিমের মধ্যে প্রোটিন রয়েছে। অন্যান্য প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবারের তুলনায় এর দামও কম। তবে অতিরিক্ত ডিম খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

জার্নাল অব অ্যাথেরসক্লেরোসিস রিসার্চ নামের একটি গবেষণা সংস্থা অতিরিক্ত ডিম খাওয়ার ক্ষতিকর বিষয়টি সামনে আনে।

গবেষকরা জানান, দীর্ঘদিন গবেষণা করে তারা এমন সিদ্ধান্তে এসেছেন। তারা বলছেন, প্রতিদিন ডিম খাওয়া সিগারেটের চেয়েও বেশি ক্ষতিকর! তাদের তথ্য অনুযায়ী, বেশি ডিম খেলে শরীরে কোলেস্টরেলের মাত্রা বেড়ে যায়। যা হৃদরোগের কারণ হতে পারে।

শুধু তাই নয়, ডিম খাওয়ার ফলে আর্থ্রাইটিসের সম্ভাবনাও দেখা যায় বেশি। তবে অনেকেই বলেন, ডিমের সাদা অংশ উপকারী, আর কুসুম খাওয়া ভালো নয়। তাদের এ তথ্যকে একেবারে উড়িয়ে দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। তাদের মতে, ডিমের যে কোনো অংশই অতিরিক্ত খাওয়া উচিত নয়।

এমনকি বিজ্ঞানীরা বলছেন, কাঁচা ডিমের তুলনায় ওমলেট, সেদ্ধ কিংবা পোচ খেলে ক্ষতির সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন বিজ্ঞানী ভয়ংকর এমন তথ্য সামনে নিয়ে এসেছেন। অথচ এতদিন চিকিৎসকরা বলেছেন, প্রতিদিন অন্তত একটি ডিম খেলে শরীর ভালো থাকবে।

তাহলে এখন ভোক্তারা কী করবেন, চিকিৎসকের পরামর্শ মানবে নাকি বিজ্ঞানীদের গবেষণা অনুসরণ করবেন? সে প্রশ্ন থেকেই যায়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*